TVS সকল বাইকের স্পেসিফিকেশন এবং রিভিউ।TVS bikes Specifications

TVS Raider 125cc এর বিস্তারিত

বর্তমানে বাজারে প্রচলিত যতগুলো 125 সিসি মোটরসাইকেল আছে তারমধ্যে টিভিএস রেইডার 125cc বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। সম্প্রতি ইন্ডিয়ান বাজারে এই বাইকটা লঞ্চ হয়েছে। লঞ্চ হওয়ার শুরুর দিন থেকেই বাইক প্রেমীদের মধ্যে এক ধরনের চাঞ্চল্য করা যায়। যদিও এই বাইকটি কমিউটার বাইক তবুও দেখতে স্পোর্টিং বাইক মনে হয়। এককথায় স্পোর্টিং লুক সমৃদ্ধ একটি কমিউটার বাইক।

TVS Raider 125cc এর বিস্তারিত
TVS Raider 125cc এর বিস্তারিত

ইন্ডিয়ার বাজারে বাইকটির মূল্য, কালার ও ভেরিয়েন্ট:

TVS Raider 125 বাইকটা ৮১,০০৬ টাকা প্রাইসে ইন্ডিয়ান মার্কেটে এভেলেবেল। এই বাইকটার দুইটি ভেরিয়েন্ট রিলিজ হয়েছে একটি হচ্ছে ড্রাম ভ্যারিয়েন্ট অন্যটি হচ্ছে ডিস্ক ভেরিয়েন্ট। দুটো ভেরিয়েন্টের ৪টি কালার এভেলেবেল রয়েছে। ডিস্ক ভেরিয়েন্ট এর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ইন্ডিয়ান রুপি ৮৭,৯০৮।

বাইকটির ইঞ্জিন পাওয়ার:

The TVS Raider 125 বাইকটাতে 124.8cc এবং BS6 ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়েছে যেটি ম্যাক্সিমাম পাওয়ার উৎপাদন করবে 11.2 bhp এবং torque উৎপাদন হবে 11.2 Nm.

TVS Raider 125 এর ব্রেকিং সিস্টেম:

ডিস্ক এবং ড্রাম দুটো ভেরিয়েন্ট এই কম্বাইন্ড ব্রেকিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে। ফুট ব্রেক একই সাথে দুইটা ব্রেকিং কাজ করবে সামনের এবং পেছনের চাকায়।

গাড়িটির ওজন এবং তেল ধারণক্ষমতা:

This Raider 125 বাইকটির ওজন 123 kg এবং তেল ধারণ করার ক্ষমতা 10 লিটার।

গাড়িটি লঞ্চ হওয়ার পর টিভিএস কোম্পানি তাদের পোর্টফলিওতে উল্লেখ করেছে যে এটি একটি ফ্যামিলি বাইক। আসলেই বাইকটি একটি প্রিমিয়াম কমিউটার বাইক।

This Raider 125 বাজারে 125 সিসির যতগুলো গাড়ি আছে যেমন বাজাজ পালসার এনএস 125 এবং হোন্ডা এসপি 125 বাইকগুলোর বেশ শক্ত পোক্ত একটি কম্পিটিটর। অন্যান্য 125 সিসি বাইকের থেকে এইবার একটু সম্পূর্ণই আলাদা এর প্রিমিয়াম লুকের জন্য।
টিভিএস কোম্পানি এই বাইকটার তিনটি ভেরিয়েন্ট বাজারে নিয়ে আসবে- ড্রাম, ডিস্ক এবং কানেক্টেড।

প্রত্যেকটা ভেরিয়েন্ট এ 124.8cc, single-cylinder, air-cooled, three-valve ইঞ্জিন ব্যবহার করা হবে।
এবং প্রত্যেকটা মোটরসাইকেলে 11.2bhp পাওয়ার ব্যবহার করা হবে 7,500rpm torque থাকবে 11.2Nm 6,000rpm।

গিয়ার ট্রান্সমিশন

This Raider 125 এই বাইকটাতে  ফাইভ স্পিড  গিয়ার ট্রানস্মিশন থাকবে। 

টপ স্পিড

কোম্পানি দাবি করে যে 0 থেকে 60 কিলোমিটার  টপ স্পিড উঠাতে সময় লাগবে 5.9 seconds। এবং সর্বোচ্চ টপ স্পিড পাওয়া যাবে 99 কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায়। তবে youtube-এর বিভিন্ন  রিভিউতে দেখা যায় গাড়িটি সর্বোচ্চ 120 কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় স্পিড তুলতে সক্ষম।

গাড়ির ওভার অল লুক

এই গাড়িটি একটি স্টাইলিশ মর্ডান ডিজাইনের গাড়ি যেটিতে এলইডি হেডলাইট ব্যবহার করা হয়েছে। বডি কালার হেডলাইট এর সাথে সামঞ্জস্য রেখে ম্যাচিং করা হয়েছে। গাড়িটিতে স্প্লিট সিট ব্যবহার করা হয়েছে। পিছনে অ্যালুমিনিয়ামের গ্রিল দেওয়া হয়েছে এবং ইঞ্জিন কাওয়াল অর্থাৎ ইঞ্জিন  গার্ব্যড বহার করা হয়েছে যেটা 125 সিসি বাইকের সচরাচর দেখা যায় না।

যে কয়টি কালার এভেলেবেল

Striking Red, Blazing Blue, Wicked Black, and Fiery Yellow.

এই বাইকটাতে স্ট্যান্ডার্ড ফিচার হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে এলইডি হেডলাইট এবং ইন্ডিকেটর হিসেবে ও ব্যবহার করা হয়েছে LED DRLs,  পিছনের টেল লাইটও এলইডি।  5 ইঞ্চি ডিজিট্যাল ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে।
গাড়িটি স্মুথ ভাবে সেল্ফ স্টার্ট ব্যবহার করা হয়েছে তবে  এই গাড়িটাতে কোন কিক স্টার্ট করার সিস্টেম রাখা হয়নি।
গাড়িটা রান করার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে ইকো এবং পাওয়ার মুড।

গাড়িটার পেছনের সিটে ছোটখাটো মালামাল রাখার জন্য একটা  স্টোরেজ দেওয়া হয়েছে।  গাড়িটার কানেক্টেড ভেরিয়েন্ট এ ব্যবহার করা হয়েছে টিএফটি ডিসপ্লে ব্লুটুথ সিস্টেম ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট ফাংশন।

কানেক্টেড ভেরিয়েন্ট এ আরো অ্যাডিশনাল কিছু ফিচার আছে যেগুলো হলো  নেভিগেশন ভয়েস অ্যাসিস্ট ইনকামিং কল এবং মেসেজ নোটিফিকেশন এবং প্রত্যেকটা ভেরিয়েন্ট ইউএসবি চার্জার  পোর্ট দেওয়া হয়েছে মোবাইল সার্চ করার জন্য।

সাসপেনশন সেটআপ

সাসপেনশন সেটআপ এর মধ্যে সামনে রয়েছে 30mm telescopic front forks  এবং পিছনে রয়েছে mono-shock  সাসপেনশন।

ড্রাম ভেরিয়েন্ট সামনে পিছনে দুটো চাকাতে 130mm drum ব্রেক ব্যবহার করা হয়েছে ব্রেকিং কন্ট্রোল হিসেবে। ডিস্ক ভেরিয়েন্ট  এ  সামনে 240mm disc এবং পিছনে 130mm drum ব্যবহার করা হয়েছে। 

সেফটি হিসেবে প্রত্যেকটা বাইকেই কম্বাইন ব্রেকিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে


About Apache RTR 160 4V

টিভিএস কোম্পানির এপাচি আরটিআর গাড়িটি বেশ জনপ্রিয়। সম্প্রতি টিভিএস অ্যাপাচি আরটিআর ভার্সন ফোর রিলিজ করেছে। এই গাড়িটি ইন্ডিয়ার বাজারে Rs. 1,12,153 তে বিক্রি করা হচ্ছে। 
গাড়িটির ভেরিয়েন্ট এবং কালার
গাড়িটি ৬টি ভার্সনে পাওয়া যাচ্ছে, এবং প্রত্যেকটা ভার্সনেরই ৪টা করে কালার রয়েছে।
About Apache RTR 160 4V
Apache RTR 160 4V

গাড়িটির ইঞ্জিন পাওয়ার

TVS Apache RTR 160 4V গাড়িতে ব্যবহার করা হয়েছে 159.7cc BS6 ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়েছে যেটি 17.39 bhp পাওয়ার উৎপাদন করে এবং torque উৎপাদন করে 14.73 Nm. 

ব্রেকিং সিস্টেম

গাড়িতে সামনের চাকায় ব্যবহার করা হয়েছে ডিস্ক ব্রেক এবং পিছনের চাকায় ব্যবহার করা হয়েছে ড্রাম ব্রেক। TVS Apache RTR 160 4V গাড়িটা তেanti-locking braking system ব্যবহার করা হয়েছে যা রাইডারকে দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা করবে।

গাড়িটার ওয়েট/ওজন ও ফুয়েল ট্যাংক ক্যাপাচিটি

Apache RTR 160 4V বাইকটার ওজন 145 kg এবং ফুয়েল ট্যাংক ক্যাপাচিটি হচ্ছে  12 লিটার।

নতুন রূপে নতুন সাজে

TVS Apache RTR 160 4V বাইক টা তে অনেক নতুন নতুন ফিচার এড করা হয়েছে এবং সাথে কিছু কালার এবং কসমেটিকস চেঞ্জও আনা হয়েছে। হেড লাইটের ব্যবহার করা হয়েছে এলইডি লাইট সাথে রয়েছে Daytime Running Lamp (DRL), gear shift indicator, এবং তিনটি রাইডিং মুড (Urban, Sport, and Rain). 
টিভিএস এর অ্যাপাচি আরটিআর ভার্সন ফোর বাইকটাতে আধুনিক ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার পেয়ে যাবেন।  যেটার দ্বারা আপনি ব্যবহার করতে পারবেন TVS SmartXonnect Bluetooth connectivity আরো স্পেশাল যে সকল সুযোগ সুবিধা গুলো রয়েছে  অ্যাডজাস্টেবল ক্লাচ এবং ব্রেক লিভার।
গাড়িটা পাওয়া যাচ্ছে Matte Black colour with red alloy wheels এবং সাথে রয়েছে নতুন সিট প্যাটার্ন ।

গাড়িটার কালার এবং ভেরিয়েন্ট:

এই মোটরসাইকেলটির তিনটি স্ট্যান্ডার্ড ভার্সনসহ একটি স্পেশাল ভার্সন রিলিজ হয়েছে। TVS Apache RTR 160 4V তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে; Racing Red, Metallic Blue, and Knight Black.

মোটরসাইকেলটি যে ধরনের ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়েছে:

এই মোটরসাইকেলটিতে ১৫৯.৭cc সিঙ্গেল সিলিন্ডার,  ৪ ভাল্বের, এবং অয়েল কুল ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়েছে। গাড়ির ইঞ্জিন সর্বোচ্চ গতি তুলতে পারবে 9,250rpm এ 17.39bhp এবং টর্ক 7,250rpm এ 14.73Nm।
গাড়িটা তে ফাইভে স্পিড গিয়ার বক্স ব্যবহার করা হয়েছে।

পরিশেষে বলতে পারি বাজেট অনুযায়ী গাড়ির স্পেসিফিকেশন খুবই ভালো দেওয়া হয়েছে। বাইকারদের মধ্যে ব্রেকিং কন্ট্রোল নিয়ে পূর্বে যে অভিযোগ ছিল, বর্তমান ভার্সনটিতে যথেষ্ট পরিমাণ সেটিস্ফাইড ব্রেকিং কন্ট্রোল সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে। আশা করছি টিভিএস অ্যাপাচি আরটিআর ভার্সন ফোর আপনাকে ব্রেকিং কন্ট্রোলের ব্যাপারে নিরাশ করবে না।

*

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post